ইলেক্ট্রনিক্স কি এবং কেন ?

ইলেক্ট্রনিক্স কথাটা শুনলেই আমাদের সামনে যে জিনিসটা ভেসে উঠে তা হলো একগাদা মোবাইল ফোন, হিজিবিজি সার্কিট, আইসি, অন্যান্য ইলেক্ট্রিকাল টুকরা-টাকরা এগুলি। কিন্তু এগুলিই কী ইলেক্ট্রনিক্স? উত্তরটা হচ্ছে একই সাথে হ্যা এবং না। কেন হ্যা এবং না একই সাথে হলো, তা জানতে এই সিরিজের সঙ্গে থাকুন।

আজকে আমরা প্রথমে বলব ইলেক্ট্রনিক্স আসলে কি। সোজা কথায় বলতে গেলে -সেমিকন্ডাক্টর আর অন্যান্য ক্ষুদ্র যন্ত্রাংশ ব্যবহার করে প্রয়োজনীয় জিনিস বানানোই হলো ইলেক্ট্রনিক্স এর মূল কাজ। সেমিকন্ডাক্টর কি সেটা আরো সামনে জানতে পারবেন, এটা এমন কঠিন কিছু না যদিও নামটা বেশ গালভরা।

solid-state1.jpg

কিছু সেমিকন্ডাক্টর এর উদাহরণ

আমাদের মধ্যে অনেকেই আছে যারা ছোটবেলা থেকেই ইলেক্ট্রনিক্স নিয়ে কাজ করতে মজা পায়, এটা তাঁদের একটা শখ। আমি নিজেও এই দলের। ইলেক্ট্রনিক্স আসলে কঠিন কিছু না। শুধুমাত্র কিছু বেসিক জ্ঞান থাকলেই এই কাজে অল্প সময়ে বিপুল দক্ষতা অর্জন করা সম্ভব। তাছাড়া এই কাজের মধ্যে একটা আভিজাত্য আছে যেটা অনেককেই আকর্ষণ করে। আর আপনার পড়াশোনা ক্লাস ৬/৬+ হলে রোবটের মত জটিল জিনিস বানানোর জ্ঞান অর্জন করা কোন ব্যাপার না। আপনার ইচ্ছামত আপনি শিখতে পারবেন। যেকোনো সাইন্স শোতে সবসময় ইলেক্ট্রনিক প্রজেক্টগুলোই বেশি “মার্কেট” পায়! ইলেক্ট্রনিক্সে সাধারণ দক্ষতা আপনাকে আর দশজনের কাছে অসাধারণ করে তুলতে পারবে।

এই সিরিজের পরবর্তী পর্বগুলোতে আপনাদেরকে পরিচয় করিয়ে দেয়া হবে ইলেক্ট্রনিক্স এর বেসিক এর সাথে। তারপর ব্যবহারিক জ্ঞান, সার্কিট ডিজাইন ও সার্কিট ইন্ট্রাপ্রিট করা ইত্যাদি।  এভাবেই অল্প অল্প করে এগিয়ে যাব আমরা। দেখবেন, একদিন আপনি নিজের বুদ্ধি খাটিয়েই একটা রোবট বানিয়ে সবাইকে তাক লাগিয়ে দিয়েছেন!

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s