লিনাক্স ইস্কুল_৩: লিনাক্স ডিস্ট্রিবিউশন

লিনাক্স  ব্যবহার করা শুরুর সাথে সাথে ব্যবহারকারীদের যেই সিদ্ধান্ত নিতে হয় তা হল কোন লিনাক্স ডিস্ট্রো ব্যবহার করা হবে। কারণ এর ওপর লিনাক্স ব্যবহারের অভিজ্ঞতা অনেকাংশেই নির্ভর করে। সকলের কাজের জন্য যেমন সব ডিস্ট্রো নয় তেমনি সবার জন্য সব ভার্সন উপযুক্তও নয়। তাই লিনাক্স ডিস্ট্রিবিউশন বা ডিস্ট্রো নিয়ে কথা বলছে তৃপ্ত…

 

সবাইকে লিনাক্স ইস্কুল পর্ব – ৩  এ স্বাগতম । লিনাক্স ইস্কুল এ এটিই যাদের নিকট প্রথম আগমন , তাদের নিকট আমার বিনীত অনুরধ রইলো পূর্বের দুটি পর্ব (পর্ব  -১ , পর্ব – ২) আগে পড়ে আসার জন্য।

তাহলে আর কথা না বারিয়ে আসল আলোচনা শুরু করা যাক। আজকে আমরা কথা বলবো “লিনাক্স ডিস্ট্রোবিউশন” নিয়ে ।

 

লিনাক্স ডিস্ট্রিবিউশন(Distribution) কি ?

লিনাক্স কার্নেল এর ওপর ভিত্তি করে ব্যবহারযোগ্য অপারেটিং সিস্টেম (OS) তৈরি করা হলে তাদের লিনাক্স ডিস্ট্রোবিউশন বলা হয়। একে অনেকে সংক্ষেপে  “ডিস্ট্রো(Distro)”ও বলে থাকে। একটি লিনাক্স ডিস্ট্রোবিউশন মূলত অনেক গুলো ওপেন সোর্স সফটওয়্যার এর সমষ্টি। আর এই সফটওয়্যার  গুলো একত্রিত ভাবে একটি স্বয়ংসম্পূর্ণ  অপারেটিং সিস্টেম (OS) এর মতো আচরণ করে।

distro.jpg

বিভিন্ন লিনাক্স ডিস্ট্রিবিউশন

 

লিনাক্স ডিস্ট্রিবিউশন কে  Platform ভেদে ৩ ভাগে ভাগ করা যেতে পারে –

। ডেস্কটপ লিনাক্স ডিস্ট্রিবিউশন । যথাঃ Ubuntu, Linux Mint, Kubuntu, OpenSuse
২। সার্ভার লিনাক্স ডিস্ট্রিবিউশন । যথাঃ Fedora Server, RHEL, OpenSuse Server
৩। বিশেষ লিনাক্স ডিস্ট্রিবিউশন  । যথাঃ Kali LInux

*আজকে শুধুমাত্র ডেস্কটপ লিনাক্স ডিস্ট্রিবিউশন নিয়ে কথা বলা হবে

অনেকে আবার লিনাক্স কে লিনাক্স ডিস্ট্রিবিউশন এর সাথে মিলিয়ে ফেলে, লিনাক্স বলতে শুধু লিনাক্স কার্নেলকেই বোঝানো হয় আর লিনাক্স ডিস্ট্রোবিউশন হচ্ছে সেই লিনাক্স কার্নেল এর ওপর ভিত্তি করে তৈরি একটি ব্যাবহারযোগ্য অপারেটিং সিস্টেম(OS) । যেমনঃ Ubuntu হচ্ছে  একটি ডিস্ট্রোবিউশন  আর লিনাক্স হচ্ছে স্বয়ং লিনাক্স কার্নেল

Linux_kernel_ubiquity.svg.png

লিনাক্স ডিস্ট্রিবিউশন এ ব্যাবহারিত লাইসেন্সGNU

লিনাক্স ডিস্ট্রিবিউশন  সংখ্যা  : প্রায় ৬০০

লিনাক্স ডিস্ট্রিবিউশন এর কিছু বৈশিষ্ট্য –

১। লিনাক্স কার্নেল এর ভিত্তি করে তৈরি করা ।

২। Live System Environment  উপস্থিত । অর্থাৎ, ইন্সটল করা ছাড়াও এসব OS  ব্যাবহার করা যায়।

৩। আকারে সাধারণত Windows OS থেকে ছোট । ৮০০MB – ১.৫GB সাধারণত ।

৪। দুর্বল হার্ডওয়্যার এর জন্য সহায়ক।

৫। প্রায় সকল  লিনাক্স ডিস্ট্রোবিউশন ই  বিনামূেল্য পাওয়া যায়।

 

কিছু জনপ্রিয় লিনাক্স ডিস্ট্রিবিউশন(Distribution) –


Debian
OpenSuse
FreeBSD
Ubuntu
Cent OS
Mandriva
Fedora
Red Hat Enterprise Linux
Arch Linux
Linux Mint 

LinuxShare.jpg

লিনাক্স ডিস্ট্রিবিউশন সমূহের আদিপিতা সমূহ –  

আগে বলে নেই, এদের কেন আমি আদিপিতা বলছি ?? প্রথমত, এসব  লিনাক্স ডিস্ট্রিবিউশন এর প্রতিষ্ঠাকাল অনেক আগে এবং দ্বিতীয়ত, এদের ওপর ভিত্তি করে বর্তমানে অনেক  লিনাক্স ডিস্ট্রোবিউশন তৈরি করা হয়েছে।

 ডেবিয়ান ( Debian)

logo_debian.png

লিনাক্স দুনিয়াতে Debian হচ্ছে অনেকটা দাদার মতো , কারণ  Debian  এর ওপর ভিত্তি করে লিনাক্স ডিস্ট্রোবিউশন তৈরি করা হয়েছে আবার ঐ সকল লিনাক্স ডিস্ট্রোবিউশন এর ওপরও ভিত্তি করে নতুন লিনাক্স ডিস্ট্রোবিউশন ও তৈরি করা হয়েছে । অর্থাৎ, Debian এর ছেলেও আছে আবার নাতি-নাতনিও আছে।

 

Image 14634.png

প্রতিষ্ঠাকাল –  ১৯৯৩
প্রতিষ্ঠাতা –  Ian Murdock
বর্তমান স্থায়ী  সংস্করণ – 8.6 ( Jessie) (Sep,2016)
বিশেষ বৈশিষ্টসমূহ
১. এর Repository  অনেক সমৃদ্ধ।
২. খুবই স্থিতীশীল ।
৩. অনেক বড় User Community।

 

  ওপেন সুসে (Open SUSE)

OpenSUSE_official-logo-color.svg.png

প্রতিষ্ঠাকাল –  ২০০৩
প্রতিষ্ঠাতা –  Community Based
বর্তমান স্থায়ী  সংস্করণ – 24 ( June, 2016)
বিশেষ বৈশিষ্টসমূহ
১. সম্পূর্ণ ভাবে  User Community দ্বারা নিয়ন্ত্রিত।
২. খুবই স্থিতীশীল ।
৩. একাধিক Desktop Environment নির্বাচন করার সুবিধা  আছে।
8. লিনাক্স কার্নেলকে পরিবর্তন করে আরও উন্নত করা হয়।

 ফেডোরা ( Fedora)  

download.png

প্রতিষ্ঠাকাল –  ২০০৫
প্রতিষ্ঠাতা –  Community Based
বর্তমান স্থায়ী  সংস্করণ – 42.1(Leap) ( November , 2016)
বিশেষ বৈশিষ্টসমূহ
১. বিল্ট-ইন ভাবেই দুটি Desktop Environment নির্বাচনের সুযোগ পাওয়া যায়।
২. উন্নত Package Management ব্যাবস্থা উপস্থিত।
৩. অনেক ব্যাবহার উপযোগী Applicationআগে থেকেই দেয়া থাকে।
৪.খুবই স্থিতীশীল (Leap)।

 

কোন লিনাক্স ডিস্ট্রোবিউশন কার জন্য শ্রেয় ?

প্রথমেই বলে নেই এটি আমার বাক্তিগত মতামত, তাই বাক্তিভেদে এর তারতম্য হওয়াটা একেবারেই স্বাভাবিক।

নতুন ব্যাবহারকরীদের নিকট এটি একটি অতি কাঙ্খিত প্রশ্ন। আসলে এটি সম্পুর্ণ ভাবে ব্যাবহারকরী এর ব্যাক্তিগত পছন্দ । লিনাক্স অর্থ মুক্ত( আক্ষরিক অর্থ নয়) , তাই আপনি শুধু মাত্র কয়েকটা  ডিস্ট্রিবিউশনেই সীমাবদ্ধ নন । যার যেটা পছন্দ এবং যার যেটা প্রয়োজন সে সেটাই বেছে নিতে পারবে। নিম্নে কিছু নমুনা উদাহরণ দেওয়া হল –

# প্রাথমিক ব্যাবহারকারীUbuntu, Linux Mint, Elementary OS

# কিছুটা অভিজ্ঞ ব্যাবহারকারী – Kubuntu, Antergos, Manjaro, Fedora, OpenSuse, Debian

# খুবই অভিজ্ঞ ব্যাবহারকারী – Arch Linux

# দেখতে অনেকটা  Windows OS এর মতো – Zorin OS , Linux Mint

# দুর্বল হার্ডওয়্যার এর জন্য – Lubuntu, Xubuntu.

# গোপনীয়তা নিয়ে যারা চিন্তিত তাদের জন্য –  Tails

# ডেস্কটপ এ  Android এর স্বাদ পেতে –  Remix OS .

তাহলে আজ এখানেই শেষ করছি । আগামীতে লিনাক্স File System নিয়ে কথা বলা হবে…

About the author : 

IMG_0316_Fotor (Large)
Tripto Afsin is a student of Shaheed Police Smrity College. Chat with this fellow blogger on https://www.facebook.com/Tripto.Afsin or https://plus.google.com/u/0/+TriptoAfsin/posts

3 thoughts on “লিনাক্স ইস্কুল_৩: লিনাক্স ডিস্ট্রিবিউশন

  1. Pingback: লিনাক্স ইস্কুল_৪ঃ লিনাক্স ফাইল সিস্টেম এবং লিনাক্স ফাইল ম্যানেজমেন্ট – Ktech

  2. Pingback: লিনাক্স ইস্কুল_৫ঃ লিনাক্স ডেক্সটপ এনভাইরোমেনট (Desktop Environment) – Ktech

  3. Pingback: লিনাক্স ইস্কুল_ ৬ঃ লিনাক্স Distro Installation | Ktech

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s